৬৮
লোকেশন
১১১
আর্টিকেল
১২০
গ্রুপ ট্যুর
২০০০০+
গ্রুপ মেম্বার
সাইরু হিল রিসোর্ট
লেখকঃ


বান্দরবান জেলায় অবস্থিত চিম্বুক রোডে ‘সাইরু হিল রিসোর্ট’ এর অবস্থান। গোটা বান্দরবান বাদে কেবল মাত্র একটি রিসোর্টের সৌন্দর্যে সামিল হতেও যে মন সায় দেয়- এমনটা হয়তো কোনো ভ্রমণপিয়াসুই মানবে না। কিন্তু অবিশ্বাস্য হলেও সত্যি, এটাই বরাবর ঘটে থাকে সাইরু হিল রিসোর্টের ক্ষেত্রে। ব্যাগ কাঁধে করে গোটা বান্দরবান চষে বেড়ালেও এর অভাবনীয় সৌন্দর্য, আর অবস্থান আপনাকে বারবার ওখানে ঘুরতে যেতে প্রেরণা দেবে।

চারদিকে সবুজাভ পাহাড়ের ঢেউ, আর সমুদ্রপৃষ্ঠ হতে প্রায় ১৮শ ফুট উঁচুতে পাহাড় চূড়ায় অবস্থিত এই ‘সাইরু হিল রিসোর্ট’। নান্দনিক স্থাপত্যশৈলির সমাবেশ, আরামদায়ক অবকাশ যাপনের আধুনিক সব সুযোগ সুবিধা নিয়ে নির্মিত হয়েছে বিলাসবহুল এই রিসোর্টটি। দেশের ভেতর অবস্থিত অন্য যেকোনো রিসোর্টের চেয়ে অবস্থান আর সৌন্দর্য ভেদে এটি নিঃসন্দেহে প্রথম সারির অবকাশ কেন্দ্রের তালিকায় থাকবে।

এই রিসোর্টের অন্যতম স্বতন্ত্র বৈশিষ্ট হলো- রুমে বসেই দেখতে পাবেন পাহাড়ের কোল ঘেঁষে বয়ে চলা অপরূপা এক সাঙ্গুকে। নয়নাভিরাম ভূ-দৃশ্য, আর কপাল স্পর্শ করে উড়ে যাওয়া মেঘ দেখতে দেখতে বেলা কেটে যাবে আপনার। মনে হবে, সত্যি সত্যি বুঝি একখানা মেঘপরি আপনার ললাট স্পর্শ করে গেল। সাত সকালে এক মগ চা হাতে রিসোর্টের বারান্দায় বসে সুদূরে মগ্ন হয়ে যাওয়ার মতো ঘটনা যে আপনার জীবনে ঘটতে পারে- তা যেন কাল অবধি ভাবনায় আসেনি।

সাইরুর বৈচিত্র সবাইকে এতটাই গ্রাস করে যে, ক্ষণিকের জন্য হলেও যান্ত্রিক জীবন থেকে সরে আসতে বাধ্য হতে হয়। প্রাকৃতিক সৌন্দর্য ছাড়াও এখানে আছে চমৎকার এক সুইমিং পুল। আছে আলাদা রেস্টুরেন্ট এবং কনফারেন্স রুম।

সাইরুর এই রেস্টুরেন্ট এন্ড ওপেন টেরেসে আছে সার্বক্ষণিক সুবিধা। যেখানে আপনি প্রায় ৫ ধরনের স্যুপ, ৭ ধরনের স্ন্যাক্স, ১২ ধরনের চাইনিজ আইটেম, ২০ ধরনের দেশী খাবার, ৫ ধরনের খিচুড়ি/বিরিয়ানি, ১০ ধরনের কাবাব এন্ড বার-বি-কিউ আইটেম, ১৫ ধরনের বেভারেজ, ৫ ধরনের ডেজার্ট ও বিভিন্ন ধরনের সিজনাল ফলের জুস পেয়ে যাবেন একদম হাতের নাগালে। এছাড়াও তাদের রয়েছে ১১ ধরনের ট্রেডিশনাল আইটেম, যা সাইরুর মেন্যুকে করেছে আরও সমৃদ্ধ ।

রিসোর্টের অভাবনীয় সৌন্দর্যের পাশাপাশি পাহাড়ে বসবাস করা আরও প্রায় ১১ আদিবাসীদের জীবন-জীবিকা, সংগ্রাম আর তাদের সংস্কৃতি মিলিয়ে দারুণ এক অভিজ্ঞতা অর্জন করতে পারেন এখানে। হানিমুন কিংবা অবকাশ যাপন- যেকোনো উপলক্ষে সাইরুতে এসে দারুণ সময় কাটিয়ে যেতে পারেন। শরৎকাল হলো সাইরু হিল রিসোর্ট ভ্রমণের উপযুক্ত সময়। এছাড়া যারা মেঘ বা মেঘলা আকাশ ভালোবাসেন, তাদের জন্য অবশ্যই সাইরুর বর্ষাকাল হবে সময় কাটানোর চমৎকার মাধ্যম।

সাইরুতে ৪ ক্যাটাগরির মোট ২০টি কটেজ রয়েছে। এখানে থাকা ও খাওয়ার জন্য অতিথিদেরকে একটু হাত খুলে খরচ করতে হবে।

কীভাবে যাবেন
বান্দরবান শহর থেকে সাইরুতে যেতে সিএনজি রিজার্ভ নেয়া যেতে পারে। ভাড়া পড়বে ৮০০-১,০০০ টাকা। দলের লোকসংখ্যা ৫-৭ জন হলে ল্যান্ড ক্রুজার নিলে সুবিধে পাবেন। ভাড়া ১,৫০০-২,০০০ টাকা। আর ৮ জনের বেশি হলে মাহেন্দ্র খোলা জীপই ভরসা। রিজার্ভ ভাড়া ২,০০০-২,৫০০ টাকা। এটাতে সর্বোচ্চ ১৪ জন পর্যন্ত যাওয়া যায়।

এছাড়াও চাইলে নিজস্ব গাড়ী সহকারে সাইরু ভ্রমণ করা যায়। তবে অবশ্যই তা তেলের গাড়ী হতে হবে । আর ড্রাইভারের পাহাড়ী রাস্তায় চালানোর অভিজ্ঞতা অবশ্যই থাকতে হবে।
ভাড়া ও অন্যান্য তথ্য জানতে পারবেন ফেসবুক পেজ, ওয়েবসাইট ও কল করে। কারণ ভাড়া বিভিন্ন সময় পরিবর্তন হয়ে থাকে…

ফেসবুক: Sairu Hill Resort
ওয়েবসাইট: www.sairuresort.com
ফোন: 01887-057777

জয়েন গ্রুপ- ছুটি ট্রাভেল গ্রুপ